Gogol Ghoshal

Foodie. Writer turned Storyteller. Aspiring globetrotter.

এমন দিনে তবে লেখা যায়

অবধারিতভাবেই অজুহাত দিয়ে শুরু হবে লেখাটা। প্রথমে, শেষ লেখার তারিখটা চট করে দেখে নিয়ে কতদিন গ্যাপ পড়েছে তার হিসেব কষা (এক বছর সাড়ে চার মাস)। তারপর ইনিয়ে বিনিয়ে ‘কারণ’ দর্শানো। প্যাখনার অন্ত নেই।

আসল কথা হচ্ছে ভয়। বহুদিন পর লিখতে বসে হোঁচট খাবার ভয়। চেনা ইংরেজি শব্দের বাংলা ‘ভার্সান’ মনে না পড়ার ভয়। মাতৃভাষায় বানান ভুল করবার ভয়। নিজের লেখা নিজের কাছেই ভালো না লাগার ভয়।

একমাস হয়ে গেল নতুন বাড়িতে এসেছি। আমার ঘরের লাগোয়া একটা ছোট্ট বারান্দা আছে এখানে। বারান্দায় যাবার দরজার কাঁচে প্লাস্টিকের খড়খড়ি লাগানো - চাইলে রোদ আসা ঠেকানো যায়। তো খড়খড়ি বুজিয়ে দিয়ে দুপুরে বেশ ঘুমোচ্ছিলাম। বারান্দার দরজাটার উপরে ইয়া বড় কাঁচ বসানো - তাই দিয়ে সরাসরি রোদ্দুর আসতে পারে না, কিন্তু আলো আসে প্রচুর। বিকেলে ঘুম ভাঙতে ওদিকে তাকিয়ে দেখলাম বাইরের পরিষ্কার আকাশ, আর বড় বড় গাছগুলোর সদ্য-আসা পাতায় ভরা লম্বা ডালগুলো হাওয়ায় দোল খাচ্ছে।

এ জিনিস দেখার পর হুড়মুড়িয়ে উঠে পড়তে হল। এমন দিনে লেখা দরকার। কিছু একটা। যা হোক কিছু। কাউকে পড়াতে হবে না। কিন্তু লিখতে থাকা দরকার।


Archive